E-CAP PLUS এর কাজ কি। E-CAP PLUS খাবার নিয়ম। E-CAP PLUS এর দাম

E-CAP PLUS এর কাজ কি। E-CAP PLUS খাবার নিয়ম। E-CAP PLUS এর দাম


https://www.himumedical.com/2023/08/e-cap-plus-e-cap-plus-e-cap-plus.html

আসছালামু আলাইকুম বন্ধুরা আজকে আমি একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ নিয়ে আলোচনা করবো। আজকে আমি যে ওষুধটি নিয়ে আলোচনা করবো তার নাম হচ্ছে E-CAP PLUS এটি Drug Internatinoal Ltd.এর Vitamine E+Vitamine C গ্রুপের একটি ওষুধ। আর বন্ধুরা বর্তমান সময়ে আমাদের এখন কোন কিছু তথ্যের প্রয়োজন হলে সেটা গুগলে সার্চ দিয়ে দেখি। তাই আপনাদের সুবিধার্তে আমার ওয়েবসাইটে সকল প্রকার ঔষধের তথ্যঔষধের দাম এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বিস্তারিত সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

 

প্রিয় বন্ধুরা আজকে আমি আপনাদের E-CAP PLUS  এর কাজ কিE-CAP PLUS খাবার নিয়ম - এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া এবংE-CAP PLUSএর দাম এই পোষ্টে আলোচনা করবো। আপনারা যদি E-CAP PLUS  এর কাজ কি -E-CAP PLUS খাবার নিয়ম - এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া এবংE-CAP PLUS এর দাম এগুলো সম্পর্কে জানার জন্য আমার ওয়েবসাইটে এসে থাকেন তাহলে আপনি ঠিকঠাক জায়গায় এসেছেন। তাহলে চলুন E-CAP PLUS  এর কাজ কিE-CAP PLUS খাবার নিয়ম - এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া এবং E-CAP PLUS এর দাম সম্পর্কে জেনে নেই।


E-CAP PLUS এর ব্যবহার ঃ

E-Cap PLUS বিশেষ করে ভিটামিন E ভিটামিন C এর অভাব জনিত যে সব রোগ গুলো আছে সে সকল রোগ গুলো নিরাময় করতে এটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। যেমন ধরুন টিসু বা কলার মেরামত করতে সাহায্য করে। যেমন আমাদের শরীরের যে টিসু বা কলা গুলো এগুলো মেরামত করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি বুকের ব্যাথা দূর করতে এ ওষুধ খুবই কার্যকারী ওষুধ। পাশাপাশি কোষের সেল ক্ষতি দূর করে। এছাড়া ও শরীরের ক্ষত দূর করে। যেমন কেটে গেলে, শরীরের কোন স্থানে ক্ষত হলে সেটি নিবারন করে। পাশাপাশি রক্তের আর বি সি বা লহিত রক্ত কনিকা উৎপাদনে ওষুধটি খুবই কার্যকরী ওষুধ। পাশাপাশি উচ্ছ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রম করতে ও সাহায্য করে।


পার্শ্ব-প্রতিক্রয়া ঃ

এ ওষুধটি মানুষের শরীরে একটি সুশহনশীল ওষুধ। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। যেমন ডাইরিয়া বা পেটের বিভিন্ন ধরণে ওষুক দেখা দিতে পারে।


যেসব ক্ষেত্রে ওষুধটি ব্যবহার করা যাবে না --

এ ওষুধটি যেকোন উপাদানের প্রতি অতি সংবেদনশীল তাদের ক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করা যাবে না


E-Cap PLUS খাবার নিয়ম ঃ

প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য--প্রতিদিন একটি করে  ক্যাপসুল খেতে হবে। সাধারণত এ ওষুধটির সেবন হলো এটি।

সন্ত্যদানকালীন ও মাতৃদুদ্ধকালীন মায়েদের যদি এটি খাবার প্রয়োজন হয় তাহলে এটি ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খেতে হবে।

এ ঔষধটি যে কোন ফার্মিসে খোজ নিলে এটি পাওয়া যাবে।

দাম ঃ

একটি ক্যপসুলের দাম মাত্র ৪ টাকা।

সকল ঔষধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন। 

 

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post