লিভোস্টার ট্যাবলেট এর কাজ কি।লিভোস্টার ১এর কাজ কি।লিভোস্টার কিসের ঔষধ।লিভোস্টার সিরাপ কি কাজ করে

লিভোস্টার ট্যাবলেট এর কাজ কি।লিভোস্টার ১এর কাজ কি।লিভোস্টার কিসের ঔষধ।লিভোস্টার সিরাপ কি কাজ করে

Tablet

Levosalbutamol

Square Pharmaceuticals Ltd.


https://www.himumedical.com/2023/07/levostar-1.html

ব্যবহার সমূহ:-

প্রাপ্তবয়স্ক ও ৬ বছর বা তদুর্ধ্বো শিশুদের হাঁপানির চিকিৎসায় নির্দেশিত।

উপাদান:-

লিভোস্টার’ ১ ট্যাবলেটঃ প্রতিটি ট্যাবলেটে আছে লিভোসালবিউটামল ১ মি.গ্রা. লিভোসালবিউটামল সালফেট আইএনএন হিসাবে।

লিভোস্টার’ ২ ট্যাবলেটঃ প্রতিটি ট্যাবলেটে আছে পিজোসালবিউটামল ২ মি.গ্রা. লিভোসালবিউটামল সালফেট আইএনএন হিসাবে।

লিভোস্টার’ সিরাপঃ প্রতি ৫ মি.লি.তে আছে লিভ্যেসালবিউটামল ১ মিগ্রা, লিভোসালবিউটামল সালফেট আইএনএন হিসাবে।

নির্দেশনা:-

সিভোস্টার” ট্যাবলেট ও সিরাপ প্রাপ্তবয়স্ক, কিশোর ও ৬ বছরের ঊর্ধ্বে শিশুদের রিভার্সিবল অবস্ট্রাক্টিভ শ্বাসনালীর রোগে ব্রহ্মোস্পাজম প্রতিরোধের জন্য নির্দেশিত।


https://www.himumedical.com/2023/07/levostar-1.html

মাত্রা ও ব্যবহারবিধি:-

সিভোস্টার *১ ও ২ মিগ্রা, ট্যাবলেট

প্রাপ্ত বয়স্ক ও ১২ বছরের ঊর্ধ্বে কিশোরদের জন্য। প্রতিদিন ১-২ মি.গ্রা. তিনবার করে।

শিশু (৬-১২ বছর)। প্রতিদিন ১ মি.গ্রা. তিনবার করে।

লিভোস্টার সিরাপ

প্রাপ্তবয়স্ক ৫-১০ মি.লি. তিনবার করে

শিশু (৬-১২ বছর): প্রতিদিন ৫ মি.লি. তিনবার করে।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া:-

হিট-২ এখোনিস্ট চিকিৎসার কারণে সম্ভাব্য তীব্র হাইপোক্যালিমিয়া ঘটতে পারে। এই প্রভাব হাইপোক্সিয়ার কারনে তীব্রতর হতে পারে। তীব্র অ্যাজমার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতেহবে, সেৱামে পটাসিয়ামের মাত্রা পর্যবেক্ষণ করতে হবে। অন্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মধ্যে বুক জ্বালাপোড়া করা, স্কেলেটাল পেশীর কাঁপুনি (বিশেষ করে হাত) এবং পেশী সংকোচন হতে পারে। 

অন্যান্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে আছে পরিপাকতন্ত্রের জটিলতা যেমন- বমিবমি ভাব, বমি, জ্বলুনি, সাবস্টানাল এবং এপিগ্যাস্ট্রিক ব্যথা ও ডায়রিয়া। কিছু ক্ষেত্রে দুর্বলতা, মাথা ব্যথা, মাথা ঘোরা, ক্লান্তিএবং ঘুমঘুমভাব আসতে পারে।


https://www.himumedical.com/2023/07/levostar-1.html


সতর্কতা:-

বিটা-২ এগোনিস্ট থেরাপির জন্য সম্ভাব্য তীব্র হাইপোক্যালিমিয়া হতে পারে। তীব্র অ্যাজমার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে কারণ এর প্রভাব হাইপোক্সিয়া বা জেনথিন জাতক, সৌরয়েড বা ডাইইউরেটিক দ্বারা চিকিৎসার কারণে এর প্রভাব প্রকটতর হতে পারে। সেরামে পটাসিয়ামের মাত্রার উপর লক্ষ্য রাখতে হবে।

লিভোসালবিউটামল, অন্য সব বিটা-অ্যাড্রিনার্জিক অ্যাগোনিস্টের মত কিছু রোগীতে লক্ষণীয় কার্ডিওভাসকুলার প্রভাব সৃষ্টি করে যা নাড়ী স্পন্দন, রক্তচাপ পরিমাপ নির্ণয় করা যায়। যদিও নির্দেশিত মাত্রায় লিভোসালবিউটামল গ্রহণে এটি অস্বাভাবিক; যদি এরূপ ঘটে তখন ওষুধটি নেয়া বন্ধ করতে হবে।

যাদের হৃদরোগ বিশেষ করে করোনারি ইনসাফিসিয়েন্সি, অ্যারিথমিয়া বা উচ্চ রক্তচাপ আছে তাদের ক্ষেত্রে সালবিউটামল সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে:-

মুখে খাওয়ার জন্য লিভোসালবিউটামল গর্ভাবস্থায় তখনই বিবেচনা করা উচিত যখন মায়ের জন্য প্রত্যাশিত সুবিধা ভ্রূণের বা শিশুর প্রতি ঝুঁকি অপেক্ষা বেশি মাতৃদুগ্ধে লিভোসালবিউটামল নিঃসরিত হয় কিনা তা জানা যায়নি। স্তন্যদানকালে এই ওষুধ সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। যারা ওষুধটির যেকোন উপাদানের প্রতি অতিসংবেদনশীল।

ওষুধের প্রতিক্রিয়:-

অন্যান্য স্বল্প মেয়াদী সিমপ্যাথোমিমেটিক শ্বাসনালীর প্রসারকসমূহ বা এপিনেফ্রিন লিভোসালবিউটামলের সাথে সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। ক্ষতিকর কার্ডিওভাসকুলার প্রভাব প্রতিহতকরতে অন্য যেকোন উপায়ে গৃহিত অন্যান্য অ্যাড্রিনার্জিক ওষুধগুলো সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে।

মাত্রাতিরিক্ততা:-

মাত্রাতিরিক্ততার ফলে বিটা-অ্যাড্রিনার্জিক উদ্দীপনা এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সমূহের প্রকটতা দেখা যায়। যেমন- টেকিকার্ডিয়া, শঙ্কা, মাথাব্যথা, কাঁপুনি, বমিবমিভাব, ঘুমঘুমভাব, ক্লান্তি ও মাথাঘোরা।হাইপোক্যালিমিয়াও হতে পারে। চিকিৎসা হচ্ছে মুখে গ্রহণ করা লিভোসালবিউটামল এর অব্যাহতি ও প্রয়োজনীয় উপসার্গিক চিকিৎসা।

 তীব্র বিষক্রিয়ার ক্ষেত্রে, পাকস্থলী খালি করে ফেলতে হবে এবং ব্রংকোম্পাজমের ইতিহাস আছে এমন রোগীর ক্ষেত্রে সতর্কতার সাথে একটি বিটা-ব্লকার প্রয়োগ করতে হবে।


https://www.himumedical.com/2023/07/levostar-1.html

সংরক্ষণ:-

লিভোস্টার’ ট্যাবলেট: আলো ও আর্দ্রতা থেকে দূরে, ৩০° সে. তাপমাত্রার নিচে সংরক্ষণ করুন। লিভোস্টার" সিরাপ: আলো থেকে দূরে, ৩০° সে. তাপমাত্রার নিচে সংরক্ষণ করুন। 

সরবরাহ:-

লিভোস্টার’ ১ ট্যাবলেটঃ প্রতি বাক্সে আছে ১০×১০টি ট্যাবলেট ব্লিস্টার প্যাকে।

লিভোস্টার’ ২ ট্যাবলেটঃ প্রতি বাক্সে আছে ৫x১০টি ট্যাবলেট ব্রিস্টার প্যাকে।

লিভোস্টার’ ৫০ মি.লি. সিরাপঃ প্রতিটি PET বোতলে আছে ৫০মি.লি. সিরাপ একটি মাত্রা পরিমাপক কাপ সহ ।।

লিভোস্টার” ১০০ মি.লি. সিরাপঃ প্রতিটি PET বোতলে আছে ১০০ মি.লি. সিরাপ একটি মাত্রা পরিমাপক কাপ সহ।

দাম:-

লিভোস্টার’ ট্যাবলেট প্রতি পিসের দাম 1.00 টাকা।
লিভোস্টার’ ট্যাবলেট প্রতি পিসের দাম 2.00 টাকা।
লিভোস্টার’ ৫০ মি.লি. সিরাপ প্রতি পিসের দাম 30.10 টাকা।
লিভোস্টার” ১০০ মি.লি. সিরাপ প্রতি পিসের দাম 45.13 টাকা।

                       সকল ওষুধ শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post